বাংলাদেশের ষড়ঋতু (অনুচ্ছেদ লিখন)

বাংলাদেশের ষড়ঋতু :

ঋতুবৈচিত্র্যের দেশ বাংলাদেশ। অপরূপ রূপসী বাংলাদেশ। বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য তার
ঋতুবৈচিত্র্যের মধ্যে চমৎকারভাবে লক্ষ্য করা যায়। প্রতিটি ঋতুই নিজেকে সাজিয়ে নেয় আপন
মহিমায়। ঋতুর এ বৈচিত্র্যময় উজ্জ্বল প্রকাশ বাংলাদেশ ছাড়া আর কোথাও দেখা যায় না। বাংলার এই রূপে গুণে মুগ্ধ
হয়ে কবি জীবনানন্দ দাশ বাংলাদেশকে ‘রূপসী বাংলা’ বলেছেন। বাংলাদেশে রয়েছে ছয়টি ঋতু।
রূপসী বাংলার ছয়টি ঋতু যেন তার ছয়টি আলাদা সৌন্দর্য। প্রতি দুই মাস মিলে হয় একটি ঋতু। বৈশাখ-জ্যৈষ্ঠ মিলে গ্রীষ্মকাল;
আষাঢ়-শ্রাবণ মিলে বর্ষাকাল; ভাদ্র-আশ্বিন মিলে শরৎকাল; কার্তিক-অগ্রহায়ণ মিলে হেমন্তকাল; পৌষ-মাঘ মিলে শীতকাল;
ফাল্গুন-চৈত্র মিলে বসন্তকাল। প্রতিটি ঋতু প্রকৃতিতে নিয়ে আসে স্বাতন্ত্র্য বৈশিষ্ট্য। অপরূপ সৌন্দর্যে কানায় কানায় পূর্ণ
হয় বাংলার পথ-প্রান্তর। এক ঋতু যায় অন্য ঋতু আসে প্রকৃতিতে নতুন বৈশিষ্ট্য ও সৌন্দর্য নিয়ে। ঋতুর প্রভাবে প্রকৃতির
বিচিত্র রূপ মানুষ প্রত্যক্ষ করে, জীবনেও নিয়ে আসে তার প্রতিফলন। ঋতুর এই বৈচিত্র্যই এ দেশের সৌন্দর্যের উৎস। প্রকৃতির
এরূপ বৈচিত্র্যময় রূপ পৃথিবীর কোথাও খুজে পাওয়া যাবে না। তাই কবি বলেছেন-
এমন দেশটি কোথাও খুঁজে পাবে নাকো তুমি
সকল দেশের রানি সে যে আমার জন্মভূমি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *